• বৃহস্পতিবার   ২৬ মে ২০২২ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১১ ১৪২৯

  • || ২২ শাওয়াল ১৪৪৩

ঝালকাঠি আজকাল
ব্রেকিং:
দারিদ্র্য দূরীকরণ প্রধানমন্ত্রীর অন্যতম লক্ষ্য: প্রাণিসম্পদমন্ত্রী প্রচারণার কৌশল হিসেবে বিএনপি সরকারকে দায়ী করে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পদ্মাসেতুর উদ্বোধনে আমন্ত্রণ পাবেন বিএনপি নেতারা: কাদের পাটখাত আবার পুনরুজ্জীবিত হয়েছে: পাটমন্ত্রী মানুষের মুখে হাসি দেখে বিএনপি’র বুকে ব্যথা হয়: ওবায়দুল কাদের নির্বাচনকে প্রহসনে রূপান্তরের কোনো ইচ্ছা আমাদের নেই: সিইসি বিএনপি ষড়যন্ত্র বন্ধ করলেই দেশের অগ্রগতির প্রতিবন্ধকতা দূর হবে: কাদের দুপুরে আত্মসমর্পণ করছেন হাজী সেলিম জুনেই পদ্মা সেতুতে দাঁড়িয়ে মানুষ পূর্ণিমার চাঁদ দেখবে: কাদের শেখ হাসিনা প্রত্যাবর্তন করাতেই উন্নয়ন ও অর্জনে বাংলাদেশ বিশ্বের বিস্ময়: সেতুমন্ত্রী

এক চার্জে ১০০০ কিলোমিটার চলবে যে ই-কার

ঝালকাঠি আজকাল

প্রকাশিত: ৫ জানুয়ারি ২০২২  

দিন দিন বৈদ্যুতিক গাড়ির প্রতি মানুষের আগ্রহ বেড়েই চলেছে। আমাদের ভবিষ্যৎ যে বৈদ্যুতিক গাড়ি তা বেশ ভালোভাবেই আঁচ করা যাচ্ছে। নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলোও ঝুঁকছেন বৈদ্যুতিক গাড়ি নির্মাণের দিকে। এবার বিখ্যাত গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান মার্সিডিজ বেঞ্জ তাদের নতুন ইলেকট্রিক গাড়ি প্রকাশ্যে আনলো।

সম্প্রতি জার্মানির বিলাসবহুল অটোমোবাইল সংস্থা মার্সিডিজ বেঞ্জ তাদের নতুন ইলেকট্রিক গাড়ি Vision EQXX প্রকাশ্যে এনেছে। এই মুহূর্তে লাস ভেগাসে চলছে মার্সিডিজ বেঞ্জের Consumer Electronics Show (CES)। সেখানেই এই নতুন ইলেকট্রিক গাড়ি প্রকাশ করেছে Vision EQXX।

সংস্থার তরফে বলা হচ্ছে, এক চার্জে এই ইলেকট্রিক গাড়ি ঘণ্টায় এক হাজার কিলোমিটারেরও বেশি সফর করতে পারবে। ইলেকট্রিক ভেহিকেলের দুনিয়ায় মার্সিডিজ বেঞ্জের এই গাড়ি এক যুগান্তকারী সৃষ্টি বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

চলতি বছর অর্থাৎ ২০২২ সালের মাঝামাঝি সময়ের মধ্যেই বিভিন্ন ধরনের টেরেনে নতুন এই ইলেকট্রিক গাড়ির টেস্ট ড্রাইভ করা হবে। প্রসঙ্গত, এই ইলেকট্রিক গাড়িই প্রথম, যা একবার ব্যাটারি চার্জ দিলে ১০০০ কিলোমিটার রেঞ্জ যেতে পারবে। ওজনে এই গাড়ি যথেষ্ট হালকা হবে।

ম্যাগনেসিয়াম হুইল এবং CFRP ডোর থাকবে এই গাড়িটিতে। গাড়ির ওজন হতে পারে ১৭৫০ কিলোগ্রাম। এই গাড়ির উপরে থাকবে আলট্রা থিন সোলার প্যানেল। এ ছাড়াও এই গাড়ির ব্যাটারিতে থাকছে ৯০০ভি টেকনোলজি। তবে এই ব্যাটারি EQS 450+ ব্যাটারির তুলনায় ৫০ শতাংশ ছোট এবং ৩০ শতাংশ হাল্কা। ব্যাটারির মোট ওজন ৪৯৫ কিলোগ্রাম।

মার্সিডিজ বেঞ্জের এই গাড়ির ভেতরে রয়েছে একটি সুবিশাল ৮কে টাচ স্ক্রিন। এই স্ক্রিনের আকার-আয়তন ৪৭.৫ ইঞ্চি। এর সঙ্গে যুক্ত রয়েছে আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স সিস্টেম। রিয়েল টাইম থ্রিডি নেভিগেশন সাপোর্ট রয়েছে এই গাড়িতে। এছাড়াও রয়েছে NAVIS অটোমোটিভ সিস্টেম। সঠিক নেভিগেশন পাওয়ার ফলে চালক দ্রুত এবং সহজে ঠিক জায়গায় পৌঁছতে পারেন।

বিশেষজ্ঞদের মতে, মার্সিডিজ বেঞ্জের নির্মিত ইলেকট্রিক গাড়ির এ যাবৎকালের সেরা মডেল হতে যাচ্ছে VISION EQXX। এই গাড়িতে প্রতি ১০০ কিলোমিটার সফরে ১০ কিলোওয়াট ঘণ্টা শক্তির প্রয়োজন হবে বলে শোনা গিয়েছে। এ ছাড়াও এই ইলেকট্রিক গাড়ি তৈরি হয়েছে রিনিউয়েবেল বা পুনরায় সৃষ্টি হবে এ জাতীয় উপদান দিয়ে। ফলে এর সরাসরি কোনো খারাপ প্রভাব পৃথিবীতে পড়বে না।

মার্সিডিজ বেঞ্জ সংস্থার সিইও ওলা কায়েলিনিউইয়াস জানিয়েছেন, আগামী দিনে বা ভবিষ্যতের ইলেকট্রিক গাড়ি যেরকম ভাবে তারা দেখতে চান, ঠিক সেভাবেই তৈরি করা হয়েছে VISION EQXX মডেল।

 

ঝালকাঠি আজকাল