• শনিবার   ১৬ অক্টোবর ২০২১ ||

  • আশ্বিন ৩০ ১৪২৮

  • || ০৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

ঝালকাঠি আজকাল

মুখের যেসব সমস্যা জানান দেয় আপনি ডায়াবেটিসে আক্রান্ত

ঝালকাঠি আজকাল

প্রকাশিত: ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১  

বিশ্বে ডায়াবেটিসে আক্রান্তের সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলেছে। এটি একটি দীর্ঘস্থায়ী রোগ। যা একবার হলে তা নিরাময় করা সম্ভব নয়। তবে নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব। ডায়াবেটিস সারা বিশ্বে প্রচুর মানুষের ভোগান্তির কারণ।

এটি চোখ, স্নায়ু, হার্ট এবং কিডনিসহ পুরো শরীরে আঘাত হানতে পারে। বেশিরভাগ মানুষ এখন এই রোগের লক্ষণ এবং উপসর্গ সম্পর্কে সচেতন। কিন্তু অনেকের ক্ষেত্রে মোটেও কোনো উপসর্গ দেখা যায় না, ফলে ডায়াবেটিস সনাক্ত করা কঠিন হয়ে পড়ে। ডায়াবেটিসের কিছু সাধারণ লক্ষণের মধ্যে রয়েছে অতিরিক্ত ক্ষুধা, ঘন ঘন প্রস্রাব, বিরক্তি এবং ক্লান্তি।

ডায়াবেটিসের আরো একটি সাধারণ লক্ষণ রয়েছে যা এই রোগকে সনাক্ত করতে পারে। আপনার কি কখনো সকালে ঘুম থেকে ওঠার পর মুখের ভেতরটা শুষ্ক মনে হয়েছে? এটি ডায়াবেটিসের লক্ষণ হতে পারে। রক্তে শর্করার মাত্রা বেড়ে গেলে মুখে এই সমস্যা দেখা দিতে পারে। পাশাপাশি হতে পারে দাঁত এবং মাড়ির রোগও। জেনে নিন মুখের যেসব সমস্যা ডায়াবেটিসের লক্ষণ হতে পারে-

থ্রাশ

ওরাল থ্রাশকে ক্যানডিডিয়াসিসও বলা হয়। এটি একটি ছত্রাক সংক্রমণ। থ্রাশের সাধারণ লক্ষণগুলোর মধ্যে রয়েছে মুখ, জিহ্বা, মাড়ি, গাল এবং মুখের ভেতরে সাদা ও লাল দাগ। এগুলো ঘা আকারেও দেখা দিতে পারে। নিয়মিত মুখ পরিষ্কার রাখার পাশাপাশি আরো কিছু যত্ন নিলে থ্রাশ এড়ানো যেতে পারে।

শুষ্ক মুখের ভেতরে শুষ্কতা

মুখের ভেতরে শুষ্কতা টাইপ ২ ডায়াবেটিসের প্রাথমিক লক্ষণগুলোর মধ্যে একটি, যা জেরোস্টোমিয়া নামে পরিচিত। মুখে লালা না থাকার কারণ ডায়াবেটিস হতে পারে, যা আপনাকে খিটখিটে এবং অতিরিক্ত তৃষ্ণার্ত করে তুলতে পারে। ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে না থাকলে তা ব্যথা, আলসার, সংক্রমণ এবং দাঁতের ক্ষয়ের কারণ হতে পারে।

মাড়ির রোগ

ব্রাশ বা ফ্লস করার সময় কি আপনার দাঁত বা মাড়ি থেকে রক্ত পড়ে? এটি মাড়ির রোগের প্রাথমিক লক্ষণ হতে পারে। ডায়াবেটিসের কারণে আপনার মাড়ি থেকে রক্তপাত হতে পারে এবং ফুলে যেতে পারে, যা জিংগাইটিস নামে পরিচিত। যদি সময়মতো চিকিত্সা না করা হয় তবে এটি পিরিয়ডোনটাইটিস নামে আরও গুরুতর সংক্রমণের দিকে নিয়ে যেতে পারে। যা দাঁতের নরম টিস্যু এবং হাড়কে ধ্বংস করে।

দাঁত ক্ষয়

রক্তে শর্করার উচ্চ মাত্রা দাঁতের ক্ষয় হওয়ার ঝুঁকি বাড়িয়ে তুলতে পারে। মুখে অনেক ধরনের ব্যাকটেরিয়া থাকে, সেগুলো শর্করা এবং স্টার্চের সঙ্গে মিশে প্ল্যাক তৈরি করে। প্ল্যাকের এসিড আপনার এনামেলকে আক্রমণ করে, ফলে দাঁতের ক্ষয় এবং মাড়ির রোগ হতে পারে। দাঁত ক্ষয়ের চিকিৎসা না করা হলে তা ব্যথা এবং সংক্রমণের কারণ হতে পারে।

মুখ এবং জিহ্বায় জ্বালাপোড়া

মুখ এবং জিহ্বায় জ্বালাপোড়া একটি কঠিন এবং কষ্টদায়ক অবস্থা। রক্তে শর্করার অনিয়ন্ত্রিত মাত্রার কারণে মুখের ভেতরে জ্বালাপোড়ার অনুভূতি হয়। যা শুষ্ক মুখ, তেতো স্বাদেরও কারণ। এ ধরনের লক্ষণ দেখা দিলে দ্রুত ডায়াবেটিসের পরীক্ষা করিয়ে নিন।

ঝালকাঠি আজকাল