• বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০২৪ ||

  • শ্রাবণ ২ ১৪৩১

  • || ১০ মুহররম ১৪৪৬

ঝালকাঠি আজকাল
ব্রেকিং:
মুক্তিযোদ্ধাদের সর্বোচ্চ সম্মান দেখাতে হবে : প্রধানমন্ত্রী পবিত্র আশুরা মুসলিম উম্মার জন্য তাৎপর্যময় ও শোকের দিন আশুরার মর্মবাণী ধারণ করে সমাজে সত্য ও ন্যায় প্রতিষ্ঠার আহ্বান মুসলিম সম্প্রদায়ের উচিত গাজায় গণহত্যার বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হওয়া নিজেদের রাজাকার বলতে তাদের লজ্জাও করে না : প্রধানমন্ত্রী দুঃখ লাগছে, রোকেয়া হলের ছাত্রীরাও বলে তারা রাজাকার শেখ হাসিনার কারাবন্দি দিবস আজ ‘ফাঁস করা প্রশ্নে চাকরি পাওয়াদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে’ সমালোচনায় কিচ্ছু যায় আসে না, অভ্যস্ত হয়ে গেছি: প্রধানমন্ত্রী ‘চীন কিছু দেয়নি, ভারতের সঙ্গে গোলামি চুক্তি’ বলা মানসিক অসুস্থতা

কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র এর কল্যাণে ঘুঁচেছে বেকারত্ব

ঝালকাঠি আজকাল

প্রকাশিত: ২০ সেপ্টেম্বর ২০২৩  

ঝালকাঠি প্রতিনিধি: ঝালকাঠি কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র (টিটিসি) এর কল্যাণে পাল্টে যাচ্ছে এ জেলার কর্মমূখি তরুণ তরুণিদের জীবন। প্রতিষ্ঠার ৭ বছরে এখান থেকে বিভিন্ন ট্রেডে প্রশিক্ষণ নিয়েছেন প্রায় ১৫ হাজার জন। দেশে বিদেশে কাজের সন্ধান পেয়েছেন ১৩ হাজারের অধিক যুবক ও যুবতীর। এর মধ্যে পাঁচ শতাধিক প্রবাসী কর্মী সমৃদ্ধ করেছে দেশের রেমিটেন্স প্রবাহ।

২০১৪ সালে ঝালকাঠি জেলা শহরের বিকনা নতুন স্টেডিয়াম সংলগ্ন এলাকায় নির্মাণ করা হয় সরকারি কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র (টিটিসি)। দেশ বিদেশে দক্ষ জনশক্তির চাহিদা মেটাতে ২০১৫ সাল থেকে এখন পর্যন্ত প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে ১৪৯৬৯ জনকে। এর মধ্যে দেশ-বিদেশে কর্মসংস্থানের সুযোগ পেয়েছেন মোট ১৩৩১৪ জন। হাউজকিপিং প্রশিক্ষণ নিয়ে বিদেশে কর্মস্থানের সুযোগ পেয়েছেন ৪৯০ জন নারী।
হাতে কলমে নানা বিষয়ে কাজ শিখছেন শিক্ষার্থীরা। তাদের লক্ষ্য দক্ষ জনশক্তি হিসেবে তৈরি হয়ে বেকারত্ব ঘুচিয়ে দেশের অর্থনৈতিক সমৃদ্ধিতে অবদান এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষণা ২০৪১ সালে স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে অগ্রণী ভূমিকা রাখা। আর জেলার এই বেকার যুবকদের স্বপ্ন পূরণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে ঝালকাঠি সরকারি কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র (টিটিসি)।

প্রশিক্ষণার্থী  লিপি আক্তার বলেন, আমার অনেক দিনের স্বপ্ন ছিলো আমি ড্রাইভিং শিখে নিজের কর্মসংস্থান কওে পরিবারে হাল ধরবো। ঝালকাঠি কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র (টিটিসি) আমার স্বপ্ন পুরনে সহায়ক হয়েছে। আমি ড্রাইভিং শিখে বিদেশে যেতে চাই।

বিভিন্ন কারিগরি কাজে যুক্ত হওয়া থেকে শুরু করে বিদেশ যাওয়া পর্যন্ত নানা বিষয়ে হাতে কলমে প্রশিক্ষণের এক বিশাল ক্ষেত্র হিসেবে ইতিমধ্যেই সুনাম অর্জন করেছে ঝালকাঠি কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র (টিটিসি)। এখানে ১৭টি ট্রেডে ৬ ও ৩ মাসের বিভিন্ন কোর্সসমূহের মধ্যে রয়েছে মটর ড্রাইভিং, সুইং মেশিন অপারেশন প্রশিক্ষণ। রয়েছে নারীদের মাসব্যাপী হাউজকিপিং প্রশিক্ষণ। এছাড়া খুব শীঘ্রই চালু হবে কোরিয়ান ভাষা শিক্ষা কোর্স।

টিটিসি থেকে প্রশিক্ষণ নিয়ে প্রশিক্ষণার্থীদের থাকতে হয় না পরিবারের বোঝা হয়ে। প্রশিক্ষণের পর  চাকরি পেয়ে আত্মনির্ভশীল হয়ে পরিবারের জন্য আশির্বাদ হয়ে দাড়াতে পারবেন তারা। প্রশিক্ষন নিয়ে খুঁজতে হয়না তাদের কর্মসংস্থান। টিটিসি থেকে প্রশিক্ষণার্থীদের যোগ্যতা অনুযায়ী ব্যবস্থা করে  দেওয়া হয় বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে কর্মসংস্থান।

কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র (টিটিসি) অধ্যক্ষ মো: শামিম হোসেন জানান, প্রশিক্ষণের প্রতিটি বিষয়ের জন্য রয়েছে সুস্বজ্জিত আধুনিক যন্ত্রপাতিসহ আলাদা রুম। এখানকার অধিকাংশ কোর্সে বিনামূল্যে ভর্তির সুযোগ রয়েছে। ক্ষেত্র বিশেষে রয়েছে ভাতা সুবিধা। গ্রামের হাটে-বাজারে প্রচারণা চালিয়ে প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে বেকারদের আসতে উদ্বুদ্ধ করছে প্রতিষ্ঠানটি। এছাড়া শ্রমবাজারের চাহিদানুযায়ী প্রশিক্ষণার্থীদের দক্ষ করে গড়ে তোলা হচ্ছে বলেও জানান প্রতিষ্ঠানটির অধ্যক্ষ।  

বেকার যুবকদের কর্মসংস্থান নিশ্চিত করতে দৃঢ় প্রতিজ্ঞা বদ্ধ বাংলাদেশ সরকার। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি উপজেলা থেকে এক হাজার বেকার যুবককে দক্ষ হিসেবে গড়ে তুলে বিদেশে পাঠানোর যে নির্দেশ দিয়েছেন সেটি বাস্তবায়নে কাজ করে যাচ্ছে ঝালকাঠি টিটিসি। এ কেন্দ্রে প্রশিক্ষণ নিয়ে অনেক বেকার যুবক যেমন পাড়ি জমিয়েছেন বিদেশে, তেমনি দেশীয় চাকরি কিংবা উদ্যোক্তা হয়ে স্বাবলম্বী হয়েছেন অনেকেই। এই দক্ষ যুব সমাজের হাত ধরে অচিরেই ঝালকাঠি বেকারমুক্ত, দারিদ্রমুক্ত একটি সুন্দর জেলা হিসেবে প্রতিষ্ঠা লাভ করবে বলে বিশ্বাস করে জেলাবাসী।  

 

ঝালকাঠি আজকাল