• বুধবার ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ||

  • ফাল্গুন ৮ ১৪৩০

  • || ১০ শা'বান ১৪৪৫

ঝালকাঠি আজকাল

ঝালকাঠিতে বোরো ধান চাষে ব্যস্ত সময় পার করছেন কৃষকরা

ঝালকাঠি আজকাল

প্রকাশিত: ৩১ জানুয়ারি ২০২৩  

ঝালকাঠি প্রতিনিধি: ঝালকাঠিতে শীতে মৌসুমে বোরো ধান চাষে ব্যস্ত সময় পার করছেন কৃষক কৃষানীরা। জমি চাষ দিচ্ছে কৃষক আর বীজ তুল দিচ্ছেন কৃষানীরা। চোখ জুড়ে মাঠের পরে মাঠ এখোন বোরো ধান বীজতলা। বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পরে কৃষকদের সার বীজসহ বিভিন্ন ভাবে সহায়তা দিয়ে যাচ্ছেন। সরকারের সহযোগিতায় কৃষকরাও উৎসাহিত হয়ে আগ্রহ বারছে কৃষি ফসল উৎপাদনে। সরকারীভাবে ধান ক্রয় করায় ভালো দাম পেয়ে লাভবান কৃষক।
 

কৃষি বিভাগ বলছে,বোরো ধান চাষে মাঠে মাঠে কৃষকদের প্রয়োজনীয় পরামর্শ দিয়ে যাচ্ছে তারা। চলতি বোরো মৌসুমে ঝালকাঠি জেলায় ১২ হাজার ৯শত ৬০ হেক্টর জমিত বোরো আবাদের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়। এরমধ্যে এখন পর্যন্ত চার হাজার ৮’শ ১৪ হেক্টর জমিতে বোরো আবাদ করা হয়েছে। জেলায় ৩৯ হাজার কৃষক বোরো ধানের আবাদ করছেন। আগের তুলনায় বোরো আবাদ অনেকটা বেড়েছে। কৃষি মন্ত্রণালয় বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশন (বিএডিসি) এর এসএসিপি প্রকল্পের আওতায় জেলা ৩০টি ভূগর্ভস্থ সেচনালা নির্মাণ করেছে। এর ফলে উপকারভোগী কৃষক  বোরো চাষাবাদ করে লাভবান হচ্ছে। এ সেচ প্রকল্পে এক ফসলি জমিতে  বোর ধান চাষাবাদের আওতায় আসছে। কৃষকদের বর্তমান সরকার ভর্তুকি দিয়ে কৃষি সেক্টরকে উন্নত যান্ত্রিকায়নে পাওয়া পাম্প ট্রাক্টর দিচ্ছেন। ফলে  কৃষকদের ব্যয় খরচ কমিয়ে কম সময়ে  উৎপাদন বৃদ্ধি পেয়েছে।
কৃষক দুলাল হাওলাদার জানায়, পৌষের শুরুতেই বোরো চাষ শুরু হয়ে মাঘের শেষ বীজ রোপন সম্পন্ন হয়। বীজতলার পাশাপাশি রোপন করা পর্যন্ত পরিবার কাজে সহযোগিতা করেন। সরকারি ভাবে আমাদের সার বীজ দিয়ে সহযোগিতা করছে। কৃষি অফিসারা আমাদের নানা ভাবে পরামর্শ দেন।

উপপরিচালক, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর,ঝালকাঠি কৃষিবিদ মো: মনিরুল ইসলাম বলেন, এ বছর শীত ও কুয়াশা তীব্র হওয়ায় এ কারণে  একটু বিলম্ভ। বৈরি আবহাওয়া মোকাবেলায় কৃষককে দিনের বেলা পলিথিন দিয়ে বীজতলা ঠেকে দেয়াসহ সার-ওধুষ ব্যবহার ও প্রয়োজনীয় পরামর্শ দেয়া হচ্ছে বলেও কৃষি বিভাগ জানায়।

 

ঝালকাঠি আজকাল