বৃহস্পতিবার   ২১ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ৬ ১৪২৬   ২৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

ঝালকাঠি আজকাল
৩৪৯

৩০ কোটি টাকা দিলে রংপুর-৩ আসন ছেড়ে দিবেন তারেক, নির্বিকার সাদ!

প্রকাশিত: ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

রংপুর-৩ আসনের উপ-নির্বাচনে জাতীয় পার্টি মনোনীত প্রার্থী রাহগীর আল মাহি সাদ এরশাদকে জয়ী করতে জাতীয় পার্টিকে বিশেষ অফার দিয়েছে বিএনপি। লন্ডন থেকে বিএনপি মহাসচিব সাদ এরশাদকে এই প্যাকেজের কথা জানিয়েছেন।

জাতীয় পার্টি সূত্রে জানা গেছে, রংপুর-৩ আসনটি জাতীয় পার্টির ঘাঁটি হিসেবেই মানছেন বিএনপি নেতা তারেক রহমান। যার কারণে এই আসনে নিশ্চিত পরাজয় জেনেও দলীয় প্রার্থী বাদ দিয়ে অতিথি রিটা রহমানকে মনোনয়ন দিয়েছেন তারেক রহমান। মূলত বড় অংকের অর্থের বিনিময়ে রিটা মনোনয়ন বাগিয়ে নিয়েছেন বলে জানা যায়। রংপুর-৩ আসন নিয়ে দুতরফা মনোনয়ন বাণিজ্য করতে তাই মরিয়া হয়ে উঠেছেন তারেক রহমান। সেই লক্ষ্যে ৯ সেপ্টেম্বর সকালে ৩০ কোটি টাকার বিনিময়ে এই আসনের প্রতিদ্বন্দ্বিতা প্রত্যাহারের প্রস্তাব দিয়ে সাদ এরশাদকে ফোন করেন তারেক। তারেক রহমানের প্রস্তাব হলো, সাদ ৩০ কোটি টাকা দিলে বিএনপি রিটা রহমানের প্রার্থিতা প্রত্যাহার করবে এবং নির্বাচনে জাতীয় পার্টিকে ভোট দিবেন বিএনপির কর্মীরা।

উপ-নির্বাচনে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের প্রস্তাবের বিষয়ে জানতে চাইলে সাদ এরশাদ কোন মন্তব্য করতে চাননি। কিন্তু সাদ এরশাদের ব্যক্তিগত সহকারী সালাম শিকদারের সাথে আলাপ করে জানা যায়, রংপুরের নির্বাচনে জেনেশুনে দলীয় প্রার্থী দেয়নি বিএনপি। পরাজয় অনুমান করেই তারা এই কাজটি করেছে। তবে অবাক লাগছে, রাজনৈতিক দৈন্যদশার মধ্যেও চাঁদাবাজি ও মনোনয়ন বাণিজ্য থেকে বের হতে পারেনি বিএনপি। আজ সকালে সাদ স্যারকে ফোন করেছিলেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান।

সালাম আরো বলেন, ফোন করে তারেক সাহেব নির্বাচনে সহায়তা করার নামে সাদ স্যারের কাছে ৩০ কোটি টাকা চেয়েছেন। তিনি বলেছেন, ৩০ কোটি টাকা দিলে নির্বাচনের শেষ সময়ে প্রার্থিতা প্রত্যাহার করবেন তার দলের প্রার্থী। এছাড়া দলীয় ভোট সাদ এরশাদকে পাইয়ে দেয়ারও ওয়াদা করেছেন। তবে সাদ স্যার তারেক সাহেবকে কোন কথা দেননি। কারণ তারেক রহমানের প্রতারণা ও মনোনয়ন বাণিজ্য সম্পর্কে ভালোমতো জানেন সাদ স্যার। বিএনপির জেনে রাখা উচিত তারেক রহমানের পাতানো ফাঁদে কখনোই পা দিবে না জাতীয় পার্টি।

এই বিভাগের আরো খবর