বৃহস্পতিবার   ২১ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ৬ ১৪২৬   ২৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

ঝালকাঠি আজকাল
১২

রেমিট্যান্স আয়ে এগিয়ে মধ্যপ্রাচ্যের প্রবাসীরা

প্রকাশিত: ২৪ অক্টোবর ২০১৯  

প্রতিবছর বাড়ছে জনশক্তি রফতানির পরিমাণ। সেইসঙ্গে বেড়েছে প্রবাসী আয় বা রেমিট্যান্স। বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় শ্রমবাজার সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যের অন্যান্য দেশ থেকেও রেমিট্যান্সের প্রবাহ বেড়েছে। যা মোট রেমিট্যান্সের প্রায় ২১ শতাংশ।

সরকারের নানা উদ্যোগ আর হুন্ডি প্রতিরোধে কঠোর অবস্থানের কারণেই বৈধ ব্যাংকিং চ্যানেলে প্রবাসী আয় বেড়েছে। আবার চলতি অর্থবছর (২০১৯-২০) থেকে বৈধ পথে প্রবাসীদের রেমিট্যান্স পাঠানো উৎসাহিত করতে সরকারের দুই শতাংশ প্রণোদনাও এ ক্ষেত্রে বিশেষ ভূমিকা পালন করছে। 

বাংলাদেশ ব্যাংকের দেয়া তথ্য অনুযায়ী, চলতি অর্থবছরের (২০১৯-২০) সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বাংলাদেশে আসা প্রবাসী আয়ের পরিমাণ ১২৪ বিলিয়ন টাকা। গত অর্থবছরের (২০১৮-১৯) একই সময়ে এর পরিমাণ ছিল ৯৫ দশমিক ৪৫ বিলিয়ন টাকা। এর আগের অর্থবছর অর্থাৎ ২০১৭-১৮ সালে এই সময় (সেপ্টেম্বর) প্রবাসী আয় ছিল ৬৯ দশমিক ১৮ বিলিয়ন টাকা। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য আয় এসেছে মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশ থেকে।

 

 

২০১৯-২০ অর্থবছরের সেপ্টেম্বরে সৌদিআরব থেকে আসা রেমিট্যান্সের পরিমাণ ৩১০ দশমিক ৪৫ মিলিয়ন ডলার। আগস্ট মাসে এর পরিমাণ ছিল ৩০৪ দশমিক ৬৯ মিলিয়ন ডলার। 

২০১৯-২০ অর্থবছরের সেপ্টেম্বরে সংযুক্ত আরব আমিরাত থেকে রেমিট্যান্স এসেছে ২১১ দশমিক ৫৫ মিলিয়ন ডলার। এর আগের মাসে (আগস্ট) রেমিট্যান্স এসেছে ১৭৪ দশমিক ৯১ মিলিয়ন ডলার।

এই সময়ে কুয়েত থেকে এসেছে ১১৬ মিলিয়ন ডলার। ওমান থেকে এসেছে ১০০মিলিয়ন ডলার। এছাড়া, কাতার থেকে ১০০ মিলিয়ন এবং বাহরাইন থেকে ৩৬ দশমিক ৯২ মিলিয়ন ডলার রেমিট্যান্স এসেছে। 

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, গত অর্থবছর (২০১৮-১৯)  দেশে রেমিট্যান্স আহরণে রেকর্ড হয়েছে। এ অর্থবছরে প্রবাসী বাংলাদেশিরা এক হাজার ৬৪২ কোটি ডলার রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন। যা বাংলাদেশের ইতিহাসে সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স আহরণ।

 

 

পর্যালোচনায় দেখা যায়, দেশে ২০১৪-১৫ অর্থবছরে সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স এসেছিল। ওই সময় আসা রেমিট্যান্সের পরিমাণ এক হাজার ৫৩১ কোটি ৬৯ লাখ মার্কিন ডলার। এরপর ২০১৫-১৬ অর্থবছরে আসে এক হাজার ৪৯৩ কোটি ১১ লাখ মার্কিন ডলার।

২০১৬-১৭ অর্থবছরে প্রবাসীদের রেমিট্যান্স পাঠানোর পরিমাণ ছিল এক হাজার ২৭৬ কোটি ৯৪ লাখ মার্কিন ডলার। আর ২০১৭-১৮ অর্থবছরের রেমিট্যান্স আসে এক হাজার ৪৯৮ কোটি ডলার। যা তার আগের অর্থবছরের চেয়ে ১৭ দশমিক ৩ শতাংশ বেশি।

এই বিভাগের আরো খবর