বৃহস্পতিবার   ১২ ডিসেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ২৭ ১৪২৬   ১৪ রবিউস সানি ১৪৪১

ঝালকাঠি আজকাল
৪২

রিফাত হত্যা : চার্জ গঠন ২৮ নভেম্বর

প্রকাশিত: ২০ নভেম্বর ২০১৯  

 


বহুল আলোচিত বরগুনার রিফাত শরীফ হত্যা মামলার ১০ আসামির বিরুদ্ধে চার্জ গঠনের তারিখ নির্ধারণ করেছে আদালত।

বুধবার সকাল ১০টার দিকে বরগুনার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. আছাদুজ্জামান এ চার্জ গঠনের তারিখ নির্ধারণ করেন।

এছাড়াও আজ ধার্য তারিখে আল কাইউম ওরফে রাব্বি আকন, মো. হাসান এবং মোহাইমিনুল ইসলাম সিফাতের জামিন আবেদন নামঞ্জুর করা হয়েছে। আর রাকিবুল হাসান রিফাত ফরাজি, কামরুল ইসলাম সাইমুন, এবং মো. সাগর পরীক্ষায় অংশ নেয়া আবেদন করেন। পরে আদালতে তাদের আবেদন মঞ্জুর করেন।

এর আগে ধার্য তারিখ থাকায় এ মামলায় কারাগারে থাকা আট আসামিকে আদালতে হাজির করে পুলিশ। এছাড়াও বাবার সাথে আদালতে হাজির হন এ মামলায় জামিনে মুক্ত থাকা নিহত রিফাতের স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি।

এ বিষয়ে রিফাত হত্যা মামলার বাদী পক্ষের মনোনীত আইনজীবী মজিবুল হক কিসলু  বলেন, ধার্য তারিখে কারাগারে থাকা আট আসামিকে আদালতে হাজির করে পুলিশ। আদালতে হাজির হন মিন্নিও। পরে তিন আসামির জামিন নামঞ্জুর এবং অপর তিন আসামির পরীক্ষায় অংশ নেয়ার অনুমতি দেন আদালত। পরে আগামী ২৮ নভেম্বর আসামিদের বিরুদ্ধে চার্জ গঠনের শুনানির দিন নির্ধারণ করে কারাগারে থাকা সব আসামিদের কাররাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

রিফাত হত্যা মামলার আসামিরা হলেন- রাকিবুল হাসান রিফাত ফরাজি (২৩), আল কাইউম ওরফে রাব্বি আকন (২১), মোহাইমিনুল ইসলাম সিফাত (১৯), রেজওয়ান আলী খান হৃদয় ওরফে টিকটক হৃদয় (২২), মো. হাসান (১৯), মো. মুসা (২২), আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি (১৯), রাফিউল ইসলাম রাব্বি (২০), মো. সাগর (১৯), কামরুল ইসলাম সাইমুন (২১)।

গত ৬ নভেম্বর রিফাত হত্যা মামলার আসামিদের অভিযোগপত্র বিচারের জন্য প্রস্তুত করে জেলা ও দায়রা জজ আদালতে পাঠান সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত।

উল্লেখ‌্য, গত ২৬ জুন বরগুনার সরকারি কলেজের সামনে রিফাত হত্যাকাণ্ড সংগঠিত হয়। এরপর গত ১ সেপ্টেম্বর বিকেলে ২৪ জনকে অভিযুক্ত করে প্রাপ্তবয়স্ক ও অপ্রাপ্তবয়স্ক; এ দু ভাগে বিভক্ত করে আদালতে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করে পুলিশ। এর মধ্যে প্রাপ্তবয়স্ক ১০ জন এবং অপ্রাপ্তবয়স্ক ১৪ জন।

এ মামলার চার্জশিটভুক্ত আসামি মো. মুসা এখনো পলাতক রয়েছেন। এছাড়া নিহত রিফাতের স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি উচ্চ আদালতের নির্দেশে জামিনে রয়েছেন। আর বাকি আসামিরা কারাগারে রয়েছেন।

এই বিভাগের আরো খবর