শনিবার   ১৮ জানুয়ারি ২০২০   মাঘ ৫ ১৪২৬   ২২ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১

ঝালকাঠি আজকাল
২৩

নলছিটি উপজেলা প্রশাসনের হস্তক্ষেপে স্যালো ড্রেজার জব্দ

প্রকাশিত: ২৯ ডিসেম্বর ২০১৯  

 


ঝালকাঠি জেলার নলছিটি উপজেলাধীন দপদপিয়া গ্রামের চৈমাথা খান বাড়ির পুকুর থেকে অবৈধভাবে আত্মঘাতী স্যালো ড্রেজার মেশিনের মাধ্যমে বালু উত্তোলন করার সময় ড্রেজার মেশিন জব্দ করে পুড়িয়ে ফেলেছে নলছিটি উপজেলা প্রশাসনের নির্বাহী কর্মকর্তা।
শনিবার দুপুর ২টার উপজেলার দপদপিয়া গ্রামের চৈমাথা খান বাড়ির পুকুর থেকে ড্রেজার মেশিন জব্দ করা হয়।
এ বিষয় স্থানীয় এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে জানা যায়, উপজেলার দপদপিয়া গ্রামের চৈমাথা খান বাড়ির পুকুর থেকে অবৈধভাবে (আত্মঘাতী ড্রেজার) স্যালো মেশিন চালিত ড্রেজারের মাধ্যমে বালু উত্তোলন করা হচ্ছিল। বালু উত্তলন করার কারনে পুকুরের ঘাটলা এবং চারপাশে (পাড়ে) ব্যাপক ফাটল ও ভূমি ধসের উপক্রম হয়েছিল। বিষয়টি নলছিটি ইউএনও মহাদ্বয় জানতে পেরে তিনি ঘটনা স্থানে আসেন। তার আসার খবর জানতে পেরে অবৈধ পাতাল ড্রেজারটির মালিক পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। অবৈধ এই ড্রেজারটি বাকেরগঞ্জ উপজেলার চরাদী ইউনিয়নের বাসিন্দা মোঃ মকবুল হোসেনের। তার মাধ্যমেই এলাকার বিভিন্ন বাড়ীর পুকুরে স্যালো ড্রেজার স্থাপন করে অবৈধ ভাবে সুবিধামত বালু উত্তোলন করে বাড়ী ও মাঠ ভরাটের কাজ করা হচ্ছে। পরে তিনি ড্রেজার মেশিনটি পুড়িয়ে ফেলেন।
এ বিষয় নলছিটি উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা রুম্পা সিকদার জানান, দপদপিয়া গ্রামের চৈমাথা খান বাড়ির পুকুর থেকে অবৈধভাবে (আত্মঘাতী ড্রেজার) স্যালো মেশিন চালিত ড্রেজারের মাধ্যমে বালু উত্তোলন করা হচ্ছিল এমন সংবাদের ভিত্তিতে শনিবার দুপুর ২টার সময় পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে অবৈধ স্যালো ড্রেজার মেশিনটি জ্বালিয়ে দেয়া হয়।
এ বিষয় তিনি আরো জানান, এভাবে বালু উত্তোলন করা পরিবেশের জন্য মারাত্মক হুমকি। নলছিটি উপজেলার কোনো স্থানে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করতে দেয়া হবে না। ভূগর্ভস্থ্য বালু ও মাটি এভাবে উত্তোলন করা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।

এই বিভাগের আরো খবর