বৃহস্পতিবার   ১২ ডিসেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ২৭ ১৪২৬   ১৪ রবিউস সানি ১৪৪১

ঝালকাঠি আজকাল
১৭

ঝালকাঠির নয়টি লবন মিলে মজুদ লবনে বিভাগের ৬ মাসের চাহিদ মিটবে

প্রকাশিত: ২০ নভেম্বর ২০১৯  

 

ঝালকাঠিতে চালু থাকা নয়টি লবন মিলের মজুদ লবনে বরিশাল বিভাগের ৬ মাসের চাহিদ মিটবে বলে লবন মিল মালিক সমিতি সুত্রে জানা গেছে। তাই এ নিয়ে কারুর চিন্তিত হওয়ার কোন কারন নেই। উল্লেখ্য লবনের দাম বাড়ার খবর শুনে ঝালকাঠিতে মঙ্গলবার দুপুর থেকে নারী পুরুষ লবন কেনার জন্য রাস্তায় নেমে পড়ে। লবন কিনতে বাজার, পাড়া মহল্লা ও সড়কে ভিড় করেন তারা। শহরে লবনের মূল্য ঠিক থাকলেও গ্রামের কিছু অসাধু ব্যবসায়ীরা বেশি দামে লবন বিক্রি করে। এতে বিপাকে পড়ে গ্রামের মানুষও লবন কিনতে ছুঁটছেন শহরের দোকানে। অনেকে ৫ থেকে ১০ প্যাকেট কিনে নেন। এদিকে লবনের দাম বেড়েছে, এমন গুজব ঠেকাতে প্রেস ব্রিফিং করেছেন জেলা প্রশাসক। মাইকিং করেছে জেলা প্রশাসন ও তথ্য অফিস। এতো কিছুর পরও থামছে না লবন নিয়ে মানুষের মধ্যে আতংক।

লবন ক্রেতা ও ব্যবসায়ীরা জানান, দেশের বিভিন্ন স্থানে লবনের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে এবং কোথাও কোথাও লবন পাওয়া যাচ্ছে না এমন খবর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম (ফেসবুক) ও মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ে। 
ঝালকাঠির জেলা প্রশাসক মো. জোহর আলী বলেন, লবন নিয়ে গুজব ছড়িয়ে পড়েছে, এসব গুজবে কেউ কান দিবেন না। লবনের পর্যাপ্ত মজুদ রয়েছে। এখানে ৯টি লবনের কারখানা রয়েছে, সবগুলো কারখানার মালিকদের সঙ্গে জেলা প্রশাসনের কথা হয়েছে। এখানে কেউ মূল্য বৃদ্ধি করলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ইতোমধ্যে আমাদের ভ্রাম্যমাণ আদালতের দুটি টিম মাঠে কাজ করছে। 

ঝালকাঠির জেলা প্রশাসক মো. জোহর আলী বলেন, লবন নিয়ে গুজব ছড়িয়ে পড়েছে, এসব গুজবে কেউ কান দিবেন না। লবনের পর্যাপ্ত মজুদ রয়েছে। এখানে ৯টি লবনের কারখানা রয়েছে, সবগুলো কারখানার মালিকদের সঙ্গে জেলা প্রশাসনের কথা হয়েছে। এখানে কেউ মূল্য বৃদ্ধি করলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ইতোমধ্যে আমাদের ভ্রাম্যমাণ আদালতের দুটি টিম মাঠে কাজ করছে। 

এই বিভাগের আরো খবর